| |

Ad

এবার ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ডিএসসিসির সঙ্গে কাজ করবে ‘হু’

আপডেটঃ ৭:১৩ অপরাহ্ণ | জুলাই ২০, ২০১৯

ডেস্ক নিউজঃ রাজধানীতে ডেঙ্গু তথা মশক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) সঙ্গে কাজ করবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও-হু)। আজ শনিবার রাজধানীর বনানীতে ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকনের বাসভবনে এক বৈঠক শেষে এমনটাই জানায় ডব্লিউএইচও’র প্রতিনিধি দল। সাঈদ খোকনের সঙ্গে পাঁচ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন বাংলাদেশে ডব্লিউএইচও’র ভারপ্রাপ্ত প্রতিনিধি ড. এডউইন স্যানিজা স্যালভেদর।

দুই পক্ষের বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে ড. এডউইন স্যানিজা স্যালভেদর বলেন, মশক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আমরা সিটি করপোরেশন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং অন্যান্য সরকারি সংস্থাগুলোর সঙ্গে কাজ করতে চাই। তারই অংশ হিসেবে আজ মেয়রের সঙ্গে বৈঠক করেছি। দুই পক্ষের তথ্য এবং অভিজ্ঞতা বিনিময় করেছি। কিভাবে আমরা একসঙ্গে কাজ করে সমস্যার সমাধান করতে পারি, তা নিয়ে আলোচনা করেছি।

স্যানিজা স্যালভেদর আরও বলেন, যে জায়গাগুলোতে সমস্যা আছে, সেগুলোর সমাধান বের করতেই কাজ করবো আমরা। এডিস মশা বাংলাদেশে নতুন আসেনি, অনেক আগে থেকেই ছিল। এই সমস্যা মোকাবিলায় সঠিক পরিকল্পনা দরকার। আশেপাশের দেশগুলোর সঙ্গে তুলনা করলে এবং বাংলাদেশে ডেঙ্গুর আগের বছরের চিত্র দেখলে দেখা যাবে যে, আক্রান্ত রোগীর সংখ্যার দিক থেকে সার্বিক পরিস্থিতি বেশ জটিল। তবে মহামারি বা আতঙ্কিত হওয়ার মতো কিছু না এখনো।

অন্যদিকে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে আমরা সুনির্দিষ্ট কিছু পয়েন্ট দিয়েছি। যেমন আমাদের ওষুধগুলো কার্যকর কিনা তারা পরীক্ষা করে দেখবে, ওষুধে কোনো পরিবর্তন দরকার কিনা, দরকার হলে তা কেমন হবে, নতুন কোনো ওষুধ দরকার কিনা- এসব তারা আমাদের অতি দ্রুততম সময়ে জানাবেন।

তবে ডেঙ্গু পরিস্থিতি এখনো নিয়ন্ত্রণে আছে জানিয়ে জনসচেতনতার প্রতি আবারও জোর দেন মেয়র। তিনি বলেন, বিগত কয়েক বছরের তুলনায় এবার ডেঙ্গুর প্রকোপ অনেক বেশি। তবুও আমাদের আশেপাশের অনেক দেশের তুলনায় আমরা ভালো অবস্থানে আছি। পরিস্থিতি এখনো নিয়ন্ত্রণে আছে। আর এটিকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে হলে জনসচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। আমরা সচেতন হতে না পারলে পরিস্থিতি জটিল আকার ধারণ করবে।

ডব্লিউএইচও এবং অন্যান্য সংস্থার সঙ্গে মিলে নেওয়া যৌথ পদক্ষেপগুলো প্রতি সাত থেকে দশদিন পরপর মূল্যায়ন করা হবে বলেও জানান মেয়র সাঈদ খোকন।